ভর্তি চলছে...

আর্কিটেকচার এন্ড ইন্টেরিয়র ডিজাইন

আর্কিটেকচার এন্ড ইন্টেরিয়র ডিজাইন বিভাগ

আর্কিটেকচার এর বাংলা প্রতিশব্দ স্থাপত্য, Ges B‡›Uwiqi wWRvBb Gi A_© ¯’cbv‡K †mŠ›`h© gwÛZ Kivi ‡KŠkj | সাধারণত স্থাপত্য বলতে আমরা নির্মাণকৌশলকেই বুঝি । আধুনিক যুগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে স্থাপনা শিল্পেও এসেছে নতুনত্ব । আর্কিটেকচারে Ges B‡›Uwiqi wWRvBb এই উন্নয়নকে কাজে লাগিয়ে তৈরী করা হচ্ছে আরামদায়ক গ্রহণযোগ্য শিল্প মন্ডিত ও রুচি সম্মত সুন্দর স্থাপনা। স্থাপত্যবিদ্যা মূলত ডিজাইন ও কৌশলকে প্রাধান্য দেওয়ার জন্য প্রয়োজন প্রচুর উদ্ভাবনী শক্তি আর এই ডিজাইন ও সৌন্দর্যকে পুজি করে দেশে শহর বন্দর গ্রামকে আরও সুন্দর করে উপস্থাপন করাই স্থাপত্যবিদ্যার মূল উদ্দেশ্য । বিশ্বের দরবারে স্থায়িত্ব ও সৌন্দর্য যেখানে একত্রে মিলিত হয় সেখানে একটি টেকসই সৌন্দর্য বিকাশ ঘটে । বিশ্বের দরবারে যে সকল স্থাপত্য মাথা উঁচু করে দাড়িয়ে আছে, যেমন IFET Tower , তাজমহল, রোমের স্থাপত্য, চীনের প্রাচীর, ব্যাবিলনের শূন্য উদ্যান- এ গুলো শুধু দীর্ঘস্থায়ী তাই নয় বরং তাদের সৌন্দর্য ও ডিজাইন সারা বিশ্বকে মুগ্ধ করেছে । এছাড়া প্রতিনিয়ত আর্কিটেকচার Ges B‡›Uwiqi wWRvBb পৃথিবীতে প্রসার লাভ করছে । (কেবল মাত্র) আর্কিটেকচার Ges B‡›Uwiqi wWRvBb টেকনোলজিতে পড়লেই নিজের কর্ম সংস্থান নিজেই তৈরি করা সম্ভব | আধুনিক যুগে বিভিন্ন অফিস, বাসস্থান বা বানিজ্যিক মার্কেটের নকশা করার জন্য এই পেশার কদর দিন দিন বাড়ছে। তাই সৃজনশীলতার সাথে সাথে নিজের দক্ষতার বিনিময়ে ভালো অর্থসংস্থানের উৎস হতে পারে এই পেশা ।

ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজির গুরুত্ব

বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে রেডিও এবং শেষের দিকে টেলিগ্রাফ শিল্পের প্রযুক্তিগত উন্নয়ন এর জন্য টেলিফোন শিল্পগুলির বিকাশে একটি পেশা হিসেবে “ইলেকট্রনিক প্রকৌশল” এর উদ্ভূত হয় । রেডিও জনগণের মনোযোগ আকর্ষন করতে সক্ষম হয়েছিল কারন প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে এর মাধ্যমে বার্তা আদান প্রদান করা যেত । ১৯২০ সালের দিকে, প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পূর্বে শুরু হওয়া অনেক সমপ্রচার “অপেশাদার” ছিল । বৃহৎ পরিমাণে ইলেকট্রনিক প্রকৌশলের আধুনিক সংস্করন যেমন টেলিফোন, রেডিও এবং টেলিভিশন সরঞ্জাম ইত্যাদির উন্নয়ন এবং এর পাশাপাশি রাডার , সোনার , উন্নত অস্ত্রোপচার এবং উন্নত অস্ত্র সিস্টেম দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় বৃহৎ পরিমাণে এসব জিনিসের ব্যবহার ইলেকট্রনিক সিস্টেমের উন্নয়নের জন্ম দেয় ।

আধুনিক সভ্যসমাজে বিজ্ঞানের প্রত্যেকটি আবিস্কারের পেছনে রয়েছে ইলেকট্রনিক্সের অবদান। এছাড়া স্বাস্থ্য সংক্রান্ত - বিষয়ে সকল প্রকার রোগ নির্ণয়ের ক্ষেত্রে ইলেকট্রনিক্সের বিকল্প কিছু হতে পারে না। কাজেই এই দ্রুত উন্নয়শীল সমাজে Electronics Engineering একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা হিসেবে অবস্থান করছে। মানুষের দৈনন্দিন জীবন প্রণালী ও বেঁচে থাকার মাধ্যম হিসাবে Electronics প্রতি নিয়তই নিজেকে হাজির করছে নতুন ভাবে। উন্নত জীবন যাপনের জন্য মানুষ প্রতিটি মুহুর্তেই Electronics এর উপর নির্ভর করে চলছে। এক কথায় এই বিশাল পৃথিবীকে হাতের মুঠোয় আনা সম্ভব হয়েছে একমাত্র Electronics এর জন্য। খুব কম পরিসরে একমাত্র ইলেকট্রনিক্সই পারে নিজের কর্মসংস্থান নিজেই সৃষ্টি করতে। যেমন: IPS, UPS, VOLT STABILIZER, TV REMOTE, VCD, DVD, POWER SUPPLY ইত্যাদি ফ্যাক্টরী তৈরী করতে পারে।


কর্মক্ষেত্র

  • বাংলাদেশে সরকারী ও বেসরকারী TV Station, Railway Station, BTCL এ সকল প্রতিষ্ঠানে উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে অসংখ্য চাকুরীর সুযোগ রয়েছে।
  • বর্তমানে বাংলাদেশে Mobile Sector এর ব্যাপক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। যার ফলে Electronics এর Diploma Engineer দের নতুন নতুন কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।
  • Mobile Company গুলোতে উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে চাকুরীর সুযোগ রয়েছে
  • বাংলাদেশে বেতার, আবহাওয়া অধিদপ্তর, রাডার ষ্টেশন ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানে উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে চাকুরীর সুযোগ রয়েছে।
  • সরকারী-বেসরকারী সকল স্কুল, কলেজ , মাদ্রাসা , এস.এস.সি Vocational, Polytechnics Institute-এর Junior Instructor, BIT I BUET-এর Electronics Lab -এ কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

ইলেকট্রনিক্স এ উচ্চ শিক্ষার সুযোগ সমূহ

  • B.Sc (Eng) in Electronics & Electrical
  • B.Sc (Eng) in Electronics & Tele Communication
  • B.Sc (Eng) in Mechatronics
  • B.Sc (Eng) in Industrial Electronics
  • B.Sc (Eng) in Instrumentation control

শিক্ষকবৃন্দ

© CPI 2019